২৬০ ডলারে টেস্টটিউব বেবি

test-tube-baby

বেলজিয়ামের চিকিত্সকরা উন্নয়নশীল দেশের দম্পতিদের স্বল্প খরচে টেস্ট টিউব বেবি নেয়ার জন্য একটি প্রযুক্তি বের করেছেন। সোমবার একদল গবেষক জানান, তাদের সরলীকৃত প্রক্রিয়ায় মাত্র ২৬০ ডলার খরচে একটি দম্পতি টেস্ট টিউব বেবি নিতে পারবেন। সাফল্যের হারের দিক দিয়ে আগের প্রক্রিয়ার চেয়ে এই প্রক্রিয়ার খুব বেশি পার্থক্য নেই অথচ খরচ আগের প্রক্রিয়ার ১০ থেকে ১৫ ভাগ। খবর টাইমস অব ইন্ডিয়ার।

জেংক ইনস্টিটিউট অব ফার্টিলিটি টেকনোলজির গবেষক এলকি ক্লেরস্ক বলেন, বন্ধ্যাত্ম হয়ত একদিন পুরোপুরি দূর করা সম্ভব হবে। ১৯৭৮ সালে প্রথম টেস্ট টিউব বেবির জন্ম হয় কিন্তু আজো এই প্রযুক্তিটি মূলত ব্যবহার করতে পারছে

উন্নত বিশ্বের মানুষ। ক্লেরস্ক এবং তার সাথিরা এমন একটি পদ্ধতি আবিষ্কার করেছেন যাতে ল্যাবরেটরির দামি যন্ত্রপাতির ব্যবহার কম হয়। বন্ধ্যাত্মের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে এটি একটি বড় অগ্রগতি। এসব যন্ত্রপাতি সচরাচর ইউরোপ-আমেরিকার আই ভি এফ (ইন ভিট্রো ফার্টিলাইজেশন) পদ্ধতির ক্লিনিকগুলোতে পাওয়া যায়। লন্ডনে ইউরোপিয়ান সোসাইটি অব হিউম্যান রিপ্রেডাকশন এন্ড এমব্রায়োলজির বার্ষিক সাধারণ সভায় গবেষকরা জানান, আশা করা যায় পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তের দম্পতিরা এখন সহজে টেস্টটিউব বেবি নিতে পারবেন।

Leave a Reply